1. Borhanuddinofficial6@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  2. admin@iqbalahmed.info : Iqbalahmed :
চাটার দল থেকে দেশ মুক্তিপাক এবং কল্যাণময় ভালোবাসা-ধন্য জনরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হোক।
চাটার দল থেকে দেশ মুক্তিপাক এবং কল্যাণময় ভালোবাসা-ধন্য জনরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হোক।

ইকবাল আহমেদ লিটনঃ বাংলার আকাশে বাতাসে উচ্চারিত রাজনৈতিক ও মানবিক নেতা বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষায় সুবিধাবাদীদের বলা হতো “চাটার দল”। আজ দেশের প্রতিটি স্থানে চাটার দলের ছড়াছড়ি।

বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন চাটার দল মুক্ত বাংলাদেশ গড়তে। আর এ মহৎ লক্ষ্যকে আধুনিক মীর জাফর-মোস্তাকেরা মেনে নিতে পারেনি। স্বপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল বাঙালির ভালোবাসার -এ তাজা রক্ত বঙ্গবন্ধুকে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে নীল নকশায় রচিত হয়েছিলো বাংলার এক ঘৃণ্য আর বেইমানের কলঙ্কজনক ইতিহাস। দেশরত্ন শেখ হাসিনার মাঝে আমরা এ নতুন প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুকে দেখতে পাই। শেখ হাসিনার মাধ্যমে বাংলাদেশকে “চাটার দলমুক্ত” মাথা উঁচু করা জাতি হিসেবে দেখতে চাই। কাজ করতে চাই আমরা -বঙ্গবন্ধুর ভাস্বর স্বপনকে আরো দীপ্তমান করার লক্ষ্যে।

আধুনিক রাষ্ট্রে জীবন যত জটিল হচ্ছে, রাষ্ট্রের ন্যায্যতা তত অধিকতর সুরক্ষার প্রয়োজন দাবি করছে। রাষ্ট্র যদি তার জনসাধারণের জন্য অধিকতর ন্যায্যতা তৈরি করতে সক্ষম হয়, রাষ্ট্রের আপামর জনসাধারণ যদি সেই ন্যায্যতার সুফল ভোগ করতে পারে -রাষ্ট্র সেই নিশ্চয়তা বিধানে সক্ষম হলে মানুষের জটিল জীবন অধিকতর সুখভোগ করতে পারে।

আধুনিক রাষ্ট্রের কাজ যেমন তার জনগণের অধিকতর কল্যাণ নিশ্চিত করা, জনগণের দায়িত্ব তেমন রাষ্ট্রকর্তৃক তার ওপর অর্পিত দায়িত্ব সুচারুরূপে সুসম্পন্ন করা। রাষ্ট্রের নাগরিকরা যদি তার কাজে ফাঁকি না দেয় অসদাচারণ না করে, ঘুষ-দুর্নীতির মতো নেতিবাচক পথ গ্রহণ না করে – সুষ্ঠুভাবে তার নিজের কাজটি ঠিকমতো করে তবেই তার দেশের জন্য ভালোবাসা সপ্রতিভাত হয়। তাতে সে নিজে যেমন আলোকিত হয় তেমনই দেশ উপকৃত হয়।

রাষ্ট্র কোন অলীক বা অবাস্তব বিষয় নয়। রাষ্ট্র প্রত্যক্ষ হয় জনগণের কার্যকলাপের দ্বারা। রাষ্ট্রের যারা শাসক হন তারাও জনসেবার শপথ নেন। শাসকের শপথ আর জনগণের দায়িত্ব দুটোই যদি নিজস্ব নিয়মানুযায়ী কার্যকর থাকে তাহলে সে দেশের শাসক যেমন জনগণের প্রিয়ভাজন হন তেমনি দেশের প্রতি জনগণের ভালোবাসাও দৃশ্যমান হয়। দেশ, জনগণ পরস্পরকে ভালোবেসে এক কল্যাণকামী আদর্শ রাষ্ট্রের পথে ধাবিত হয়। শত দুঃখ, শত বাধা, শত দুর্নিবার প্রতিরোধ সত্ত্বেও বাংলাদেশকে আমরা সেইরকম কল্যাণময় ভালোবাসা-ধন্য চাটারদল মুক্ত জনরাষ্ট্র হিসেবে দেখতে চাই। দেশকে ভালোবেসে দেশের উত্তরোত্তর সুশ্রিতা, সুপ্রিয়তা, সুবৃদ্ধি আনতে চাই।

জয় বাংলা – জয় বঙ্গবন্ধু

লেখকঃ সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও সদস্য সচিব- আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগ, ইকবাল আহমেদ লিটন।